নকুল কুমার বিশ্বাস : Tag

ক- বলে কথা কইতে মনে জাগে ভীতি

ক- বলে কথা কইতে মনে জাগে ভীতি খ- বলে খোয়া গেছে লোকের আদর্শ-নীতি গ- বলে গুরু মারা শিষ্য ঘরে-ঘরে ঘ- বলে ঘুঘুর ফাঁদে পড়িয়া মানুষ মরে ও কী বলবো কী বলবো ভাই। ঙ- বলে ব্যাঙে গান গায় কোকিল নিরুদ্দেশ চ- বলে ভাই চাপাবাজে ভইরা গেছে দেশ ছ- বলে ভাই ছলনা আজ প্রেমের অপর নাম জ- বলে...

চাচায় চা চায় চাচী চ্যাঁচায়

চাচায় চা চায় চাচী চ্যাঁচায় চা চড়াতে চায় না চাচী চচ্চড়ি চুলায়। চাচার চিকন চাকন চেহারাটা চান্দিটা চচকচে চরণের চামড়ার চটি, চীনা চশমা চোখে চাচা চিরকালই চালাক চতুর চাটুকারিতায়।। চাচায় চায়রে চা চানাচুর চাচী চিড়া-চাল চাচা-চাচীর চেঁচাচেচি চলছে চিরকাল চাছা চটা চেছে চাচা চাচীরে...

নিজে হইয়া কলির বান্দর পরের মাইয়া খোঁজো সুন্দর

নিজে হইয়া কলির বান্দর পরের মাইয়া খোঁজো সুন্দর বন্ধু আগে নিজের অন্দর সুন্দর করে লও সীতার মত সাথী চাইলে রামের মতো হও। তুমি চাও বউ তোমার ঘরে আসুক রূপে আলো করে নিজের চেহারাখানা আয়নায় দ্যাখো আগে ভালো করে তুমি হয়ে চরিত্রহীন অতি বউটা চাও সাধ্বী সতী প্রশ্ন করো নিজের প্রতি...

ওরে বেয়াক্কেল সঙ্গে কি আর যাবেরে সাইকেল

ওরে বেয়াক্কেল সঙ্গে কি আর যাবেরে সাইকেল তোর পড়ে থাকবে খাট-পালঙ্ক চৌধুরী টাইটেল। যেদিন তোর দেহের ব্যাটারি হবেরে ফিউজ সেদিন তুই ক্যামনে শুনবি বিবিসি’র নিউজ যাবি কেমন করে শ্মশানে পায়ে দিয়া বাটার স্যাণ্ডেল। ওরে বেয়াক্কেল সঙ্গে কি আর যাবেরে সাইকেল ।। তুই ছিলি শিশু...

বউ মরে গেলে দুইদিন কান্না (স্বামীকে বিশ্বাস করো না কেউ)

বউ মরে গেলে দুইদিন কান্না তিনদিন বন্ধ রান্না স্বামী চারদিন ভালো করে খান্‌ না পাঁচ ছ’দিন শোকের ঢেউ সাতদিনের পরে আনে আবার ঘরে নতুন একখান বউ স্বামীকে বিশ্বাস করো না কেউ। গলা ধরে বলে স্বামী তুমি আমার-তোমার আমি তুমি ছাড়া আমার কেহ নাইরে স্বামী যায়রে যথা-তথা কে জানে এই...

যেথায় জ্ঞানের দ্বার রুদ্ধ ও যা বিবেক বিরুদ্ধ

যেথায় জ্ঞানের দ্বার রুদ্ধ ও যা বিবেক বিরুদ্ধ তা মানতে করলি বাধ্য আমায় মানতে করলি বাধ্য হায়রে মূর্খ তোদের বোঝায় কার বাবার সাধ্য। জ্ঞান বিবেক থাকিতেও তোদের কাটলো না মনের তমঃ ব্রাহ্মণে যেখান কয় সেখানে কইস্‌ নমঃ নমঃ বুঝলি না কে প্রিয়তম আসল অরাধ্য। হায়রে মূর্খ তোদের বোঝায়...

আমার বাবা মারা গেছে বুঝবো সে তো আমি

আমার বাবা মারা গেছে বুঝবো সে তো আমি কেন তোমায় দেবো থালা-বাটি-ধূতি-গামছা দামি-দামি। আমার বাবা স্বর্গে থাক আর নরকে তলিয়ে থাক তোমার তাতে কী আসে যায় তুমি কেন গলাও নাক সে মুক্তি মোক্ষ পাক বা না পাক বুঝবে জগৎস্বামী। কেন তোমায় দেবো থালা-বাটি-ধূতি-গামছা দামি-দামি।। নিজের...

কষ্ট করে দিনে-রাইতে কতো টাকা করছো কামাই

কষ্ট করে দিনে-রাইতে কতো টাকা করছো কামাই এতো টাকা ক্যামনে নিবা কাফনের তো পকেট নাই। হায় বাড়ি-গাড়ি আহামরি সোনাদানা ভরি-ভরি টিভি-ফ্রিজ-চেইন-ঘড়ি নেতাগিরি-বাহাদুরী উমেদারী-জমিদারী পড়ে রইবো কিচ্ছা খতম হইবো। নরম বিছানাতে শুয়ে আরাম করছো ভাই খাটে আছে তোষক-গদি খাটিয়াতে নাই সেই...

এই যে এত কষ্ট সাধের যৌবন নষ্ট

এই যে এত কষ্ট সাধের যৌবন নষ্ট জীবন গাঙে অভাব নামের ঢেউ বাঘ ডরানো মাঘের শীতে ঘাম ঝরিয়ে পৃথিবীতে খুঁজে ফিরি অর্থ নামের মৌ সবকিছুর জন্য দায়ী বউ। ব্যাচেলার জীবনে ভাই যেখানেই হতো রাত পরম নিশ্চিন্তে সেখানেই হয়ে যেতাম কাত ছিলো সরল জীবনের অঙ্ক লাগতো না খাট-পালঙ্ক...

বউ আমার বিয়ের আগে ভালোই নাকি নাচতো

বউ আমার বিয়ের আগে ভালোই নাকি নাচতো নাচতে নাচতে মাঝে মাঝেই বিটিভিতে আসতো এখন আমায় বন্দি করে সংসারের খাঁচায় আজকাল আর নাচে না বউ আমারে নাচায়। বিয়ের পরে বউকে আমার বুকে দিলাম ঠাঁই কিছুদিন পরে দেখি বউ বুকের মাঝে নাই ও সে মাথায় উঠে হাত তুলেছে ট্রাফিকের কায়দায়। আজকাল আর নাচে...

যা করবার তা বিয়ের আগে কর

যা করবার তা বিয়ের আগে কর তোর বউয়ের ফরমাস খেটে আসবে হাড় কাঁপানো জ্বর যা করবার তা বিয়ের আগে কর। বউয়ের আলতা-পাউডার-সাবান-শ্যাম্পু-শাড়ি রঙিলা হাতা-খুন্তি-থালা-কড়াই-হাঁড়ি আর ঠিলা এসব কিনতে গিয়ে হবে ঢিলা কাছার কাপড়। যা করবার তা বিয়ের আগে কর।। হবি সংসারের হাল ধরতে গিয়ে...

খুলনা আমার শ্বশুর বাড়ি বলতে লজ্জা নাই

খুলনা আমার শ্বশুর বাড়ি বলতে লজ্জা নাই তোমরা আমার শালা-শালী আমি দুলাভাই। জন্ম-মৃত্যু-বিয়া নাকি বিধাতারের দিয়া তাই যশোর জেলায় মাইয়া দেখলাম খুলনায় হইছে বিয়া সাত-সমুদ্র পাড়ি দিয়া রূপসায় নাও ডুবাই। তোমরা আমার শালা-শালী আমি দুলাভাই।। খুলনার মেয়ে রাঁধে ভালো বাঁধে ভালো চুল...

মাথায় টিকলি গলায় মালা

মাথায় টিকলি গলায় মালা মাজায় বিছা হাতে বালা আমি বুঝি না ক্যান যায় না তবু গয়না পরার আশা কেন ভালো নাকটা ছিদ্র কইরা পরেছো নাকঠাসা দিদি পরেছো নাকঠাসা। আগে পুরুষকে বানাইয়া স্রষ্টা হাত পাকাইয়া নারীকে করেছেন সৃষ্টি সকল যাদু দিয়া ওই মন ভোলানো-চোখ জুড়ানো কোমল তনু খাসা। তবু কেন...

সখী তারে নিষেধ করে দে বারণ করে দে

সখী তারে নিষেধ করে দে বারণ করে দে ও সে আর যেন না বাজায় বাঁশরি রাধা নাম ধরে তার বিষম বাঁশির সুরে মরি শুধু জ্বলে-পুড়ে আগুন লেগেছে অন্তরে। আমি যখন যমুনাতে জল ভরিতে যাই বাঁশি বলে কদম তলে প্রাণ রাই আসিতে ঘরের পানে বাঁশিতে পিছনে টানে এ জ্বালা সহিবো কী করে।। গহন রাতে বিজন...

চামচা বলে- আমার নেতার বড়োই উদার মন

চামচা বলে- আমার নেতার বড়োই উদার মন জনতা কয়- উদার হয় সে এলে নির্বাচন এটা ভোটের কারণ। চামচা বলে- আমার নেতা বড়ই বিদ্বান জনতা কয়- দেখি নাই তো সার্টিফিকেট খান ক্যামনে করি প্রমাণ। চামচা বলে- আমার নেতার চরিত্র নির্মল জনতা কয়- ঘন ঘন ব্যাংক্ক যায় ক্যান বল্‌ কারণটা কী আসল।...

বিয়া করলাম ক্যান রে দাদা বিয়া করলাম ক্যান

বিয়া করলাম ক্যান রে দাদা বিয়া করলাম ক্যান হলাম আমার ঘরের আমি মেম্বার পরের মাইয়া চেয়ারম্যান। তাড়াতাড়ি গেলে ক্যান দেরি করে এলে ক্যান মুখখানা কালি ক্যান পকেটটা খালি ক্যান বিয়েটা করলে ক্যান সংসার গড়লে ক্যান চিন্তাটা আগে করলে না ক্যান এতো ক্যানোর জবাব দিতে আমার ফুরায়...

খালি কলসি বাজে বেশি ভরা কলসি বাজে না

খালি কলসি বাজে বেশি, ভরা কলসি বাজে না রূপ নাই তার সাজোন বেশি, রূপের মাইয়া সাজে না। দেখ কতো বিজ্ঞাপনে বাহারি সব নাচে-গানে বলছে সেরা গুণে-মানে এই পণ্যের নাই তুলনা গুঁড়ো দুধে ক্ষুদে জগ ওয়ান নিলে পাবে থ্রি বাকি তিনটাই ফ্রি নিজের ঢাক নিজে পেটালেও আসল ছাড়া চলে না আবার যার...

বাবার বাড়ি এই গেরাম শ্বশুর বাড়ি ওই

বাবার বাড়ি এই গেরাম শ্বশুর বাড়ি ওই তবে তোমার বাড়ি কইগো নারী তোমার বাড়ি কই? শিশুকাল আর কৈশোর কাটে বাবার আশ্রয়ে যৌবন কাটে স্বামীর কাছে শ্বশুরালয়ে আবার বৃদ্ধ বয়সে আশ্রয় নাই আর ছেলের কাছে বই। তবে তোমার বাড়ি কইগো নারী তোমার বাড়ি কই? জনম ভরে ভাত রাঁধিলে পরের হা৬ড়িতে আপন...

হে ব্রাহ্মণ্যবাদ থামাও তোমার দুর্বার গতি অস্পৃশ্যতার

হে ব্রাহ্মণ্যবাদ থামাও তোমার দুর্বার গতি অস্পৃশ্যতার নইলে আবারও উঠিবে হুঙ্কারি সেই সুরাসুর জয়ী কালাপাহাড় ভাঙিবে যতো মঠের চূড়া-মন্দির দেউল-ভজনালয়ের দ্বার থামাও তোমার দুর্বার গতি অস্পৃশ্যতার। চণ্ডাল-মুচি ছুঁইলে মন্দির পূজা হয় অশুদ্ধ শিখায়নি তো কৃষ্ণ-গোরা-নানক-কবীর-বুদ্ধ...

তিলক-মালা-টিকি ধরে যায় না পাওয়া শ্যাম-কানাই

তিলক-মালা-টিকি ধরে যায় না পাওয়া শ্যাম-কানাই শুধু আসন করলেই হয়না সাধন কর টিপলেই হয় না গোঁসাই। শতো শতো শাস্ত্র জেনে গেরুয়া বস্ত্র পরে কৃষ্ণ পাওয়া যান না কভু সংসার ত্যাগী ভেখ্‌ ধরে কাশীতে শিব যায় না পাওয়া লাভ হয় শুধু আসা-যাওয়া মন্দিরে গোবিন্দ যাওয়া সার বটে কাঁদাকাটাই।।...
Page 1 of 212