শচীন দেব বর্মন : Tag

হায় কি যে করি এ মন নিয়া

হায় কি যে করি এ মন নিয়া

হায় কি যে করি এ মন নিয়া সে যে প্রনয়ও হুতাশে ওঠে উথলিয়া ওই দুষ্টু পাপিয়া বলে পিয়া পিয়া পিয়া পিয়া… তার মিষ্টি কুজন তবু জ্বলে হিয়া মুখে অভিমান ওঠে মনে উছলিয়া আছে সবারি কেহ না কেহ মরমিয়া হায় একেলা আমারই শুধু নাই প্রিয়া ওই দুষ্টু পাপিয়া বলে পিয়া পিয়া পিয়া পিয়া…...

রঙিলা রঙিলা রঙিলা রে রঙিলা

রঙিলা রঙিলা রঙিলা রে রঙিলা আমারে ছাড়িয়ারে বন্ধু কই গেলা রে বন্ধু কই রইলা রে আমারে ছাড়িয়ারে বন্ধু কই গেলা রে তুমি হইও গাঙ রে বন্ধু আমি গাঙের পানি জোয়ারে ভাটাতে হবে নিতই জানাজানি রে বন্ধু নিতই জানাজানি তুমি হইও ফুল বন্ধু আমি হবো হাওয়া দেশ বিদেশে ফিরবো আমি হইয়া মাতেলা...

তুমি আর নেই সে তুমি

তুমি আর তুমি আর তুমি আর নেই সে তুমি জানি না জানি না কেন এমনও হয় তুমি আর নেই সে তুমি তোমার চোখেরও পাতা নাচে না নাচে না আমারো পথ চেয়ে তোমার পায়ে পায়ে মল বাজে না বাজে না আমারো সাড়া পেয়ে হাসো না হাসো না সে হাসি মধুময় তুমি আর নেই সে তুমি তোমার সাপেরও বেণী দোলেনা দোলে না...

কে যাস রে ভাটি গাঙ বাইয়া

কে যাস রে ভাটি গাঙ বাইয়া আমার ভাইধন রে কইয়ো নাইওর নিতো বইলা তোরা কে যাস কে যাস বছর খানি ঘুইরা গেল গেল রে ভাইয়ের দেখা পাইলাম না পাইলাম না কইলজা আমার পুইড়া গেল গেল রে ভাইয়ের দেখা পাইলাম না পাইলাম না ছিলাম রে কতই আশা লইয়া ভাই না আইলো গেল গেল রথের মেলা চইলা তোরা কে যাস কে...

তাকডুম তাকডুম বাজাই

তাকডুম তাকডুম বাজাই আমি তাকডুম তাকডুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল সব ভুলে যাই তাও ভুলি না বাংলা মায়ের কোল বাংলা জনম দিলা আমারে তোমার পরান আমার পরান এক নাড়িতে বাঁধা রে মা-পুতের এ বাঁধন ছেড়ার সাধ্য কারো নাই সব ভুলে যাই তাও ভুলি না বাংলা মায়ের কোল মা তোমার মাটির সুরে সুরেতে...

তুমি এসেছিলে পরশু

তুমি এসেছিলে পরশু কাল কেন আসোনি তুমি কি আমায় বন্ধু কাল ভালবাসনি নদী যদি হয়রে ভরাট কানায় কানায় হয়ে গেলে শূন্য হটাৎ তাকে কি মানায় তুমি কি আমায় বন্ধু কাল মনে রাখ নি কাল কেন আসোনি কাল ভালবাসনি আকাশে ছিল না বলে হায় চাদের পালকি তুমি হেটে হেটে সন্ধায় আসোনি কাল কি তুমি কি...

নিটোল পায়ে রিনিক ঝিনিক

নিটোল পায়ে রিনিক ঝিনিক পায়েলখানি বাজে মাদল বাজে সেই সংকেতে শ্যামা মেয়ে নাচে পাগলপারা চাঁদের আলো নাচের তালে মেশে নিটোল পায়ে রিনিক ঝিনিক চাঁদের আলোয় কালো কাকা নাচের তালে দোলেরে আহা মরি ঢলে ঢলে দোলে যেন সাদা মেঘের কোলে কালো তড়িৎ খেলেরে খেলে ঐ কি কৌতুকে খেলে ঝলক ভরা দামিন...

বর্ণে গন্ধে ছন্দে গীতিতে

বর্ণে গন্ধে ছন্দে গীতিতে হৃদয়ে দিয়েছ দোলা রঙেতে রাঙিয়া রাঙাইলে মোরে একি তব হরি খেলা তুমি যে ফাগুন রঙেরও আগুন তুমি যে রসেরও ধারা তোমার মাধুরী তোমার মদিরা করে মোরে দিশাহারা মুক্তা যেমন শুক্তিরও বুকে তেমনি আমাতে তুমি আমার পরানে প্রেমের বিন্দু তুমিই শুধু তুমি প্রেমের অনলে...

বাঁশি শুনে আর কাজ নাই

বাঁশি শুনে আর কাজ নাই সে যে ডাকাতিয়া বাঁশি সে যে দিন-দুপুরে চুরি করে রাত্রিরেতে কথা নাই।। শ্রবণে বিষ ঢালে শুধু বাঁশি পোড়ায় প্রাণ গড়লে ঘুচাব তার নষ্টামি আজ আমি সপিব তাই অনলে।। ও…বাঁশেতে ঘুণ ধরে যদি কেন বাঁশিতে ঘুণ ধরে না কতজনায় মরে শুধু পোড়া বাঁশি কেন মরে না।।...